মিজানকে কেন দেখতে গেলেন প্রধান নির্বাচক

ঘরোয়া প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে গত দুই মৌসুম ধরে আশ্চর্য ধারাবাহিক মিজানুর রহমান। জাতীয় লিগে সর্বশেষ পাঁচ ইনিংসেই সেঞ্চুরি করেছেন, সর্বশেষটি পেলেন আজ রংপুরের বিপক্ষে। মিজানের ব্যাটিং দেখতে রাজশাহী গেছেন প্রধান নির্বাচক।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের দল দুদিনের মধ্যে দিয়ে দেবেন নির্বাচকেরা। দল অনেকটাই তৈরি। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দুই-একটি নতুন মুখকে যদি সুযোগ দিতে হয়, নির্বাচকেরা তাই বিশেষ নজর রাখছেন জাতীয় লিগের দ্বিতীয় পর্বে।

প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন যেমন ছুটে গেছেন রাজশাহীতে, মিজানুর রহমানের ব্যাটিং দেখতে। রাজশাহীর এই ওপেনার ‘বাধ্য’ করেছেন দৃষ্টিটা তাঁর দিকে টেনে নিতে। জাতীয় লিগের ম্যাচ মানেই যেন মিজানের সেঞ্চুরি।

২৭ বছর বয়সী রাজশাহী বিভাগের এ ওপেনার জাতীয় লিগে সর্বশেষ পাঁচ ইনিংসেই সেঞ্চুরি করেছেন, সর্বশেষটি পেলেন আজ রংপুরের বিপক্ষে। রাজশাহী সর্বশেষ চার ম্যাচেই এক ইনিংস করে ব্যাটিং করেছে।

গত মৌসুম থেকে ঘরোয়া প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে আশ্চর্য ধারাবাহিক মিজান। গত জাতীয় লিগে তামিম ইকবালের টানা তিন ইনিংসেই সেঞ্চুরির রেকর্ডটা ছুঁয়েছিলেন। রেকর্ডটা ভাঙতে পারেননি মাত্র ৩৬ রানের জন্য।

সেই রেকর্ড গড়তে না পারার হতাশাটা এখনো যায়নি মিজানের, ‘টানা চার ইনিংসের রেকর্ডটা না করতে পেরে অনেক খারাপ লেগেছিল। এক বড় ভাই বলছিল নিজের ওপর বিশ্বাস রাখ, তুই পারবি। সেই বিশ্বাসটা রেখেছি। গত দুই বছর অনেক কষ্ট করেছি। এখন সেই পরিশ্রমের ফল পাচ্ছি।’

খুলনার বিপক্ষে ১১৫ রানের পর আজ রাজশাহীতে রংপুরের বিপক্ষে করেছেন ১৬৫। নাজমুল হোসেন শান্তর সঙ্গে মিজানের ওপেনিং জুটিতে এসেছে ৩১১ রান। মিজানের দিনে সমান উজ্জ্বল নাজমুলও, করেছেন ১৭৩। দুজনের দুই সেঞ্চুরিতে রাজশাহী দিন শেষ করেছে ২ উইকেটে ৪১৯ রান করে।

নাজমুল অনেক আগ থেকেই নির্বাচকদের রাডারে আছেন। নির্বাচকদের ভাবনায় যে মিজানও আসতে পারেন, সেটি মিনহাজুলের কথায় বোঝা গেল, ‘খুব ভালো ব্যাটিং করেছে দুজনই। আমি এসেছিলাম মিজানুরকে দেখতে।

গত দুই বছর সে ঘরোয়া ক্রিকেটে ধারাবাহিক ভালো খেলছে। একটু দেখতে চেয়েছিলাম, কোনো বোলিংয়ের বিপক্ষে কেমন খেলে, বিশেষ করে পেস বোলিংয়ে। ব্যাটসম্যান খারাপ নয়। তবে জাতীয় দলের সুযোগ-সুবিধা পেলে বা আরও একটু ভালো পরিচর্যা পেলে সে আরও ভালো করতে পারবে।’

অবশ্য এতেই নিশ্চিত হওয়ার উপায় নেই যে আসন্ন জিম্বাবুয়ে সিরিজে মিজানের সুযোগ মিলবে। তবে তিনি তাঁর কাজটি করে চলেছেন। এবার মিজানের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে ছুটছেন ঢাকা মহানগরের ওপেনার সাদমান ইসলামও।

প্রথম পর্বে সিলেট বিভাগের বিপক্ষে ১৫৭ রানের পর আজ ফতুল্লায় ঢাকা বিভাগের বিপক্ষে অপরাজিত আছেন ১৮৬ রানে। সাদমানের সেঞ্চুরিতে মহানগরের স্কোর ৪ উইকেটে ৩১২।

জাতীয় লিগে মিজানুরের টানা পাঁচ সেঞ্চুরি

বিপক্ষ ভেন্যু মৌসুম
১৪৩ সিলেট বগুড়া ২০১৭-১৮
১০২ চট্টগ্রাম বগুড়া ২০১৭-১৮
১৭৫ ঢাকা মহানগর চট্টগ্রাম ২০১৭-১৮
১১৫ খুলনা রাজশাহী ২০১৮-১৯
১৬৫ রংপুর রাজশাহী ২০১৮-১৯