সাবেক এমপির গাড়ি ভাঙচুর, পুলিশের ১৫০ রাউন্ড গুলি

26

চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত বিশেষ বর্ধিত সভাকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

এ সময় ভাঙচুর করা হয়েছে আওয়ামী লীগের সাবেক এমপির গাড়িবহর। মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে সংঘর্ষের এ ঘটনা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ১৫০ রাউন্ড গুলি ছুড়েছে পুলিশ। এ সময় পুলিশসহ আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের প্রায় ২৫ জন আহত হয়েছেন। এ সময় আতঙ্কে বাজারের ব্যবসায়ীরা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতারা জানান, আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী বাছাই করতে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নির্দেশে ফরিদগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ স্থানীয় বিআরডিবি অফিসের সামনে বিশেষ বর্ধিত সভার আয়োজন করে।

সভামঞ্চে ফরিদগঞ্জের সাবেক এমপি ড. মোহাম্মদ শামছুল হক ভুইয়া ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট জাহিদুল ইসলাম রোমানসহ আওয়ামী লীগের এক পক্ষের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

একপর্যায়ে উপজেলা সদরের সবুজ মার্কেটের সামনে থেকে সাবেক এমপি ড. মোহাম্মদ শামছুল হক ভুইয়ার বিরুদ্ধে স্লোগান তুলে আওয়ামী লীগের ক্ষুব্ধ আরেকটি পক্ষ সভামঞ্চে হামলা চালায়। এ সময় ইট-পাটকেল নিক্ষেপ শুরু করে তারা। এ নিয়ে উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। প্রায় ঘণ্টাব্যাপী চলে এ সংঘর্ষ।

এতে পুলিশের এসআই রবিউল, আওয়ামী লীগ নেতা সাইফুল ইসলাম রিপন, আলী আকবর, মাহাবুব আলম, দেলোয়ার হোসেন ভুইয়া, শরিফুল ইসলাম, মো. সুমন, মনু মিয়া, নিবিড় আহম্মেদ, মাসুদ আলম ও সাগরসহ ২৫ নেতাকর্মী আহত হয়। এ সময় সভার পাশে থাকা সাবেক এমপির গাড়িবহর ভাঙচুর করে বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা। একপর্যায়ে অবস্থা বেগতিক হলে বিশেষ বর্ধিত সভা পণ্ড হয়ে যায়।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দীন আহম্মেদ ও বিশেষ অতিথি হিসেবে সাধারণ সম্পাদক আবু নাইম দুলাল পাটোয়ারী উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও তারা আসেননি।

এছাড়া সভায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু সাহেদ সরকার উপস্থিত ছিলেন না। তবে সভার সভাপতি হিসেবে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের পাটোয়ারী উপস্থিত ছিলেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ওই এলাকা উত্তপ্ত পরিস্থিতি বিরাজ করছে। অতিরিক্ত পুলিশ ও ডিবি পুলিশ এলাকায় অবস্থান নিয়েছেন।

সুত্রঃ জাগো নিউজ