এই তরুণকে কেনার পাল্লা দিয়েছে রিয়াল-বার্সা

47

বার্সেলোনার যুব প্রকল্প লা মাসিয়ায় বেড়ে ওঠা এক উইঙ্গারকে কিনতে জোর প্রতিদ্বন্দ্বিতা চলছে রিয়াল-বার্সার মধ্যে

লা লিগায় খেললে এত দিন তাঁকে অনেকেই চিনতেন। কিন্তু ক্রোয়েশিয়ান লিগ বলেই হয়তো কারও অতটা মাথাব্যথা নেই। যদিও রিয়াল মাদ্রিদ ও বার্সেলোনার খুব ভালোরকম মাথাব্যথাই আছে দানি ওলমোকে নিয়ে।

২০ বছর বয়সী এই উইঙ্গারকে কিনতে মরিয়া দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ক্লাবই। বোঝাই যাচ্ছে, রিয়াল-বার্সা দুই দলই ওলমোর মধ্যে কিছুটা একটা খুঁজে পেয়েছে। সেটি নিখাদ প্রতিভা। ডায়নামো জাগরেবের এই ফুটবলারকে তো আর এমনিতেই নাগরিকত্ব দিয়ে লুকা মদরিচ-ইভান রাকিতিচদের পাশে খেলানোর কথা ভাবছে না ক্রোয়েশিয়া!

অথচ, বার্সাই তাঁকে দলে ভেড়াতে পারত সবার আগে। এস্পানিওল থেকে ৯ বছর বয়সে ওলমো যোগ দিয়েছিলেন বার্সার ফুটবল ‘খামার’ লা মাসিয়ায়। সেখানে সাত বছর বিদ্যা-শিক্ষা নেওয়ার পর ওলমো পাড়ি জমান ক্রোয়াট ক্লাব ডায়নামোয়। দলটির বয়সভিত্তিক প্রকল্প থেকে এখন মূল দলে আলো ছড়াচ্ছেন স্পেনের বয়সভিত্তিক দলেও খেলা এই উঠতি প্রতিভা।

ফ্রান্সের সংবাদমাধ্যম ‘লেকিপ’ জানিয়েছে, রিয়াল-বার্সা দুই দলই ওলমোকে কিনতে মরিয়া। গত বছর ক্রোয়াট লিগে সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কারজয়ী ওলমো এবারও দারুণ আলো ছড়াচ্ছেন। এ পর্যন্ত ৪ গোল ও ৩ ‘অ্যাসিস্ট’ করলেও ওলমোর বহুমাত্রিক খেলায় মুগ্ধ স্পেনের এই দুই বড় ক্লাব। গোলসংখ্যা নয় ওলমোর খেলার ধরনটা মনে ধরেছে রিয়াল-বার্সার।

লেকিপ জানিয়েছে, ক্রোয়েশিয়ায় ওলমোর সঙ্গে বার্সাই আগে যোগাযোগ করেছে। ২৫ মিলিয়ন ইউরোয় তাঁরা ক্লাবে ফেরাতে চায় এই তরুণকে। রিয়াল পরে যোগাযোগ করে বার্সার চেয়ে এক মিলিয়ন ইউরো বেশি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। ওলমো এ নিয়ে এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো মন্তব্য না করলেও এর আগে একবার সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিলেন, স্পেনে ফিরলে সেটি হবে ক্যাম্প ন্যু।

ডায়নামোর সঙ্গে ২০২১ সাল পর্যন্ত চুক্তি রয়েছে ওলমোর। এর আগে জানা গিয়েছিল জাগরেবের পক্ষ থেকে চেষ্টা করা হচ্ছে ওলমোকে ক্রোয়াট নাগরিকত্ব দেওয়ার। স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম ‘এএস’ এবার জানাল, ক্রোয়াট নাগরিকত্ব পাওয়ার খুব কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছেন তিনি। যদিও ওলমোর মনের ইচ্ছা জন্মভূমি স্পেনের হয়ে খেলার। কিন্তু স্পেন দল থেকে ডাক না পেলে ক্রোয়েশিয়া তো আছেই। এর আগে ওলমো নিজেই বলেছেন, মদরিচ-রাকিতিচদের পাশে কে না খেলতে চায়!