পাওয়া গেছে সালার উড়োজাহাজের ধ্বংসাবশেষ

96
বেঁচে নেই সালা, নিশ্চিত হওয়া গেছে। ছবি: টুইটার

বিশ্বের শতকোটি ফুটবল ভক্তের আরজি বিফলে গেল। নিখোঁজ হওয়া আর্জেন্টাইন ফুটবলার এমিলিয়ানো সালাকে বহনকারী উড়োজাহাজের ধ্বংসাবশেষ পাওয়া গেছে ইংলিশ চ্যানেলে। ফলে আনুষ্ঠানিকভাবে নিশ্চিত হওয়া গেল, উড়োজাহাজ দুর্ঘটনাতেই প্রাণ হারিয়েছেন সালা ও তাঁর পাইলট ডেভিড ইবোটসন।

কর্তৃপক্ষ হাল ছেড়ে দেওয়ায় মাঝখানে বন্ধ হয়ে গিয়েছিল উদ্ধার কার্যক্রম। এরপর ব্যক্তি উদ্যোগে খোঁজ করার করার জন্য তহবিল সংগ্রহ করা শুরু করে সালার পরিবার। সালাকে উদ্ধারের অভিযান চালিয়ে যাওয়ার অনুরোধ করেছিলেন লিওনেল মেসি থেকে ডিয়েগো ম্যারাডোনার মতো কিংবদন্তিরা। সেই তহবিলে দান করেছিলেন আদ্রিয়েন রাবিওত, কিলিয়ান এমবাপ্পে, দিমিত্রি পায়েত, এনগোলো কান্তের মতো তারকারাও। কিন্তু সবার সব চেষ্টা, সব সাহায্য, সব প্রার্থনাকে ঠুনকো বানিয়ে বিধাতা যেন আরেকবার প্রমাণ করলেন, মানুষের জীবন কতটা নশ্বর, কতটা অনিশ্চিত। না হলে ২৮ বছরের জীবনের প্রতিটা মুহূর্ত যে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে খেলার স্বপ্ন দেখে এসেছিলেন সালা, যে স্বপ্ন পূরণ করার জন্য এক চাইনিজ ক্লাবের কোটি টাকার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করতে দ্বিতীয়বার ভাবেননি, অবশেষে সে স্বপ্ন পূরণ হওয়ার আগেই কেন এভাবে প্রাণ হারাতে হবে তাঁকে?

সালাকে উদ্ধার অভিযানের নেতা নৌবিজ্ঞানী ডেভিড মেয়ার্নস গত রাতে একাধিক টুইটের মাধ্যমে জানিয়েছেন, ফ্রান্সের কাছাকাছি ইংলিশ চ্যানেলের দ্বীপ গুয়ের্নসিতে সালা ও তার পাইলট ইবোটসনকে নিয়ে নিখোঁজ হওয়া উড়োজাহাজের ধ্বংসাবশেষ পেয়েছে তার দল ‘এয়ার অ্যাক্সিডেন্ট ইনভেস্টিগেশন ব্রাঞ্চ’। এর মধ্যেই সালার পরিবারকে এ ব্যাপারে জানানো হয়েছে।

গত সপ্তাহে এক ফরাসি নারী হোসেত্তে বার্নার্ড ইংলিশ চ্যানেলের নিকটবর্তী ফরাসি দ্বীপ কোতেন্তিন পেনিনসুলাতে বিমানের একটা কুশন (বালিশ) পেয়েছিলেন বলে জানা গিয়েছিল। অনুমান করা হয়েছিল, সেটা সালার নিখোঁজ উড়োজাহাজেরই অংশ। সে ঘটনার ছয় দিনের মাথাতে সেটির সন্ধান মিলল।

ওয়েলসের ক্লাব কার্ডিফ সিটি তাদের ইতিহাসের রেকর্ড ১৭ মিলিয়ন ইউরো খরচ করে ২৮ বছর বয়সী এই আর্জেন্টাইন ফুটবলারকে দলে নেয়। চলতি মাসেই আর্সেনালের বিপক্ষে ম্যাচের মাধ্যমে সালার অভিষেক হতো বলেই ধারণা করা হচ্ছিল।

সালার প্রিমিয়ার লিগে খেলার স্বপ্নটা স্বপ্নই থেকে গেল!