সর্বকালের সেরা না-হওয়া-ক্যাচ!

66

একে একে নিভাইতেছেন দেউটি! এ সময়ের সবচেয়ে বিনোদনদায়ী ব্যাটসম্যানদের একজন ব্রেন্ডন ম্যাককালাম এবার বিগ ব্যাশ থেকেও অবসরের ঘোষণা দিলেন। আর সেই ঘোষণার দিনেই মাঠে এমন একটা ক্যাচ নিলেন, যেটি শেষ পর্যন্ত ক্যাচ হয়েও হলো না। না হলে কী হবে, এরই মধ্যে সেই ক্যাচের ভিডিও তুমুল আলোড়ন তুলেছে সামাজিক মাধ্যমে। বলা হচ্ছে, এটাই কি সর্বকালের সেরা না-হওয়া ক্যাচ?

বিগ ব্যাশে কাল ম্যাককালামের দল ব্রিসবেন হিট খেলেছে অ্যাডিলেড স্ট্রাইকার্সের বিপক্ষে। ৩৯ বলে ৫১ রানের ইনিংস খেলে দলকে জেতাতে ভূমিকা রেখেছেন। ওই ম্যাচেই স্ট্রাইকার্সের ইনিংসের ১৫তম ওভারে ঘটল দারুণ এক ঘটনা। সোয়েপসোনকে স্লগ সুইপ করেছিলেন নেসের। ঠিকমতো ভারসাম্য ধরে রাখতে পারেননি, কিন্তু যতটুকু জোর ছিল, তাতেই বল উড়ে গেল সীমানায়। সেখানে পাহারায় ছিলেন ম্যাককালাম, ৩৭ পেরিয়ে যাওয়া বয়সটাকে কাঁচকলা যিনি দেখিয়েই চলেছেন।

বাঘ যেভাবে শিকারের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে, সেভাবেই লাফিয়ে বলটা লুফে ঠিক সীমানার ওপরেই পড়ছিলেন ম্যাককালাম। পা সীমানা ছুঁয়ে ফেলছে দেখে বল হাত থেকে ছুড়ে ভাসিয়ে দিলেন শূন্যে। ডিগবাজি খেয়ে নিজে পড়লেন বৃত্তের বাইরে। এরই মধ্যে কোত্থেকে যেন উড়ে এলেন বেন কাটিং। ম্যাককালামের ছুড়ে দেওয়া বল লুফে নিলেন আরও দারুণ দক্ষতায়! বল পড়তে দিলেন না মাটিতে।

ক্রিকেটে এমন যৌথ প্রযোজনার রিলে ক্যাচ এখন মাঝেমধ্যেই দেখা যায়। আর এটা তো ক্যাচই হলো না। দুর্ভাগ্যজনকভাবে কাটিং বল ধরার আগেই সেটি ছয় হয়ে গেছে। ম্যাককালাম যে হাতে বল রাখা অবস্থাতেই পা ফেলেছেন সীমানার ওপরে। তবু ম্যাককালাম-কাটিংয়ের চেষ্টা বিশাল করতালি পেল। সবচেয়ে সুন্দর মুহূর্তটির জন্ম অন্যভাবে দিলেন ম্যাককালাম। যখন নিজেই তৃতীয় আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় না থেকে ইশারায় জানিয়ে দিলেন, এটা ছক্কা হয়েছে। এগিয়ে এসে কাটিংয়ের পিঠ চাপড়ে দিলেন লং অন থেকে মিড উইকেটে দৌড়ে এসে ক্যাচটা ধরার জন্য। আশপাশের সতীর্থরা এগিয়ে এসে পিঠ চাপড়ে দিলেন ম্যাককালামেরও। ৩৮ বছর বয়সে পা রেখেও এই ক্ষিপ্রতা!

ম্যাককালাম যে চাইলে আরও কিছুদিন খেলে যেতে পারেন, সেটা এবাররে বিগ ব্যাশে তাঁর টানা তিন ফিফটির ইনিংসও সাক্ষ্য দেবে। তবে আইপিএলের নিলামে বিক্রি না–হওয়া এই কিউয়ি ব্যাটসম্যান সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, ২০১৯ সালেই খেলোয়াড়ি জীবনের ইতি। এ বছর আরও কিছু টি-টোয়েন্টি লিগে ‘খ্যাপ’ খেলবেন। তারপর বিদায়। তবে ক্রিকেট ছাড়ছেন না। বরং খেলোয়াড়ি জীবনের ইতি নতুন এক জীবনের শুরু এনে দেবে। কোচিং ক্যারিয়ার শুরু করতে যাচ্ছেন ২০১৬ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকেও বিদায় বলে দেওয়া ম্যাককালাম।