ভারত–দুঃখ বাংলাদেশ দিয়ে ভুলছেন গাপটিল

53

চাইলেই বলে ফেলা যায়, পারলে ভারতের বিপক্ষে সিরিজটা ভুলে যেতে চাইবেন মার্টিন গাপটিল। কিন্তু সেটা পলায়নপর মানসিকতা। নিউজিল্যান্ডের পক্ষে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ওয়ানডে সেঞ্চুরি যার, তাঁর তো আর এভাবে ভুলে গেলে চলে না। ভারতের বিপক্ষে করা ভুল থেকে শিক্ষা নিয়েছেন গাপটিল। আর সে শিক্ষা কাজে লাগাচ্ছেন বাংলাদেশের বিপক্ষে। ওতেই কপাল পুড়ছে মাশরাফি-সাইফউদ্দীনদের।

ভারতের বিপক্ষে ভয়ংকর দুঃসময় গেছে গাপটিলের। ৪ ম্যাচে মাত্র ৪৭ রান করেছেন এই ওপেনার। বাংলাদেশের বিপক্ষে তাঁর পারফরম্যান্স দেখে অবশ্য সে কথা ভুলে যাওয়ার দশা। প্রথম ম্যাচে ১১৭ রানে অপরাজিত ছিলেন। পরের ম্যাচে ম্যাচ শেষ করে আসতে পারেননি কিন্তু প্রথম ম্যাচের রান ঠিকই টপকে গেছেন। ২ ইনিংসে ২৩৫ রান তোলা গাপটিল নিজেই জানিয়েছেন এভাবে ফর্ম ফিরে পাওয়ার গল্পটা, ‘ভারত সিরিজের পর আমি একটু সময় নিয়েছি। আমার ব্যাটিংয়ের ফুটেজ দেখে কিছু জিনিস খুঁজে পেয়েছি, যা নিয়ে কাজ করতে হবে। প্রত্যেকটা জিনিস নিয়ে সর্বোচ্চ সময় দেওয়া আমি নিশ্চিত করেছি এবং এরপরই ফিরেছি (বাংলাদেশ সিরিজে)। এখন পর্যন্ত সেগুলো কাজে লাগছে।’

ফর্ম ফিরে পাওয়ার জন্য ওপেনিং সঙ্গী হেনরি নিকোলসের কাছেও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। প্রথম ম্যাচে তো বহুদিন পর উদ্বোধনী জুটিতে সেঞ্চুরিও পেয়েছে নিউজিল্যান্ড। এতে দলের মূল ব্যাটসম্যান কেন উইলিয়ামসনের ওপর চাপ কমছে। গাপটিল এটাকেই বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন, ‘আমাদের শুরুটা ভালোই হচ্ছে। আমরা দুটি ভালো শুরু পেয়েছি। আজ হয়তো গত ম্যাচের মতো অত বড় ছিল না। কিন্তু কেনের (উইলিয়ামসন) জন্য একটা ভিত্তি দেওয়া গেছে, যেন সে উইকেটে সময় কাটাতে পারে কিছুক্ষণ।’

উইলিয়ামসনের উইকেটে সময় কাটানো নিয়ে আপাতত বাংলাদেশের মাথা না ঘামালেও চলছে। তৃতীয় ওয়ানডেতে বিশ্রাম পাচ্ছেন নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক। তবে বাংলাদেশের জন্য মূল সমস্যা হয়ে ওঠা গাপটিলের এমন কোনো ইচ্ছা নেই। কারণ ফর্মটা যত দূর সম্ভব টেনে নেওয়ার ইচ্ছা তাঁর, ‘আজ বেশ ভালো লাগছিল। এখানে ব্যাট করতে সব সময়ই ভালো লাগে। মনে হচ্ছে কয়েক বছর আগে যেমন ছিলাম, সে ফর্ম ফিরে পাচ্ছি। এমন অনুভব করতে পেরে খুব ভালো লাগছে। আশা করি এভাবে আরও এগিয়ে যাব।’

সেটা হলে বাংলাদেশের ধবলধোলাই হয়তো আর আটকানো সম্ভব হচ্ছে না।