১৫ নয়, ভ্যাট হবে সর্বোচ্চ ১০ শতাংশ: অর্থমন্ত্রী

45

জুলাই থেকে বিভিন্ন পণ্য ও সেবায় সর্বোচ্চ ভ্যাট ১০ শতাংশ, এখন যা আছে ১৫ শতাংশে। এছাড়া, নতুন আইনে ভ্যাটের ৫ ও ৭ শতাংশের আরো দুটি স্তর থাকতে পারে বলেও জানালেন অর্থমন্ত্রী। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এনইসি সম্মেলন কক্ষে প্রাক বাজেট আলোচনা শেষে তিনি আরো জানান, জুলাই থেকে স্কুল-কলেজ এমপিওভুক্তি।

১৯৯১ সালে দেশে চালু হয় ভ্যাট ব্যবস্থা। আইন করে বিভিন্ন পণ্য ও সেবায় ১৫ শতাংশ ভ্যাট আরোপ করে সরকার। তবে ব্যবসার সক্ষমতা, পণ্য মূল্যসহ নানা বিষয় বিবেচনায় কমানোও হয় ভ্যাটের হার। এতে স্বকীয়তা হারায় আইনটি। এ প্রেক্ষিতে ২০১২ সালে হয় নতুন ভ্যাট আইন। সেখানেও একক ও সর্বোচ্চ হার ১৫। তবে ব্যবসায়ীরা এটি মানতে রাজি না হওয়ায়, আটকে আছে বাস্তবায়ন।

তবে এবার আর পেছাতে চায় না সরকার। অর্থমন্ত্রী জানালেন, জুলাইয়ে কার্যকর হবে নতুন আইন। থাকবে তিনটি স্তর। আর সর্বোচ্চ হার হবে ১০ শতাংশ।

আগামী বাজেটে রপ্তানি খাত প্রাধান্য পাবে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, এতে সমন্বয় হবে রপ্তানিতে প্রণোদনার হার। কর্মসংস্থান বাড়িয়ে ব্যয় কমানো হবে সামাজিক সুরক্ষা খাতে। আর বেসরকারি স্কুল কলেজ এমপিও ভুক্তির জন্য বরাদ্দ থাকবে বাজেটে।

খেলাপি ঋণ কমাতে উন্নত দেশের মতো দেউলিয়া আইন হচ্ছে জানিয়ে, আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, কোনো প্রতিষ্ঠান ঋণ শোধে ব্যর্থ হলে তা নীরিক্ষা করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।