রাবি সাংবাদিকতার শিক্ষার্থীকে মারধর করল ছাত্রলীগ

36

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) এক শিক্ষার্থীকে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন কর্মী মারধর করেছে। সোমবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর একাডেমিক ভবনের ছাদে এ মারধরের ঘটনা ঘটে।

মারধরের শিকার শেখ ইউসুফ বাপ্পী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষাথী।

অভিযুক্তরা হলেন- বিশ্ববিদ্যালয়ের সংস্কৃত বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ও শাখা ছাত্রলীগের কর্মী জেমস, রাকিব, একই বিভাগের প্রথম বর্ষের আল আমিন, রাজু। অভিযুক্তরা শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনুর অনুসারী।

ভুক্তভোগী বাপ্পী বলেন, আমরা রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর একাডেমিক ভবনের ছাদে জেলা সমিতির সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের অনুশীলন করছিলাম। এ সময় জেমসসহ ছাত্রলীগের আরও কয়েকজন কর্মী এসে এখানে কী করছি, তা জানতে চায়। তারপর আমি কিছু বুঝে ওঠার আগেই জেমস রড দিয়ে আমার পিঠে ও হাতে আঘাত করে। পরে জেলা সমিতির ভাইয়েরা এগিয়ে আসলে তারা পালিয়ে যায়।

তবে মারধরের বিষয়টি অস্বীকার করে অভিযুক্ত জেমস বলেন, আমাদের এক বন্ধুর সঙ্গে বাপ্পীর একটু ঝামেলা হয়েছিল। আমরা সেটা মীমাংসা করার জন্যই সেখানে গিয়েছিলাম। কিন্তু একপর্যায়ে বাপ্পীর সঙ্গে বাকবিতণ্ডা হয়। মারধরের কোনো ঘটনা ঘটেনি।

আরেক অভিযুক্ত রাকিব বলেন, বাপ্পীর সঙ্গে আমরা কথা বলতে গিয়েছিলাম। তাকে মারধর করা হয়নি।

রাবি শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু বলেন, মারধরের বিষয়টি শোনার পর আমি অভিযোগকারী ও অভিযুক্তদের ডেকে মীমাংসা করে দিয়েছি। বাপ্পীও আমাদের ছাত্রলীগের কর্মী। তাদের মাঝে ভুল বোঝাবুঝির ফলে এমনটা হয়েছিল।