জাককানইবিতে মানবাধিকার দিবস পালিত

Avatar
নিজাম উদ্দিন, সিনিয়র রিপোর্টার
৭:৫০ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৩০, ২০১৯

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে আজ পালিত হয়েছে মানবাধিকার দিবস,২০১৯। ইউএনবি, ইউএনএইচআর এবং আইন ও বিচার বিভাগের যৌথ উদ্যোগে নানা কর্মসূচি পালনের মধ্য দিয়ে পালিত হয়েছে মানবাধিকার দিবস,২০১৯।

আজ সকাল ১০টায় র‍্যালি এবং বেলুন উড়িয়ে অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা করা হয়। র‍্যালিতে উপস্থিত ছিলেন জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশ বিষয়ক মানবাধিকার কর্মকর্তা জাহিদ হোসাইন, কলাম লেখক, সংস্কৃতিকর্মী এবং মানবাধিকার কর্মী সঞ্জীব দ্রং, আইন ও বিচার বিভাগের সভাপতি মোঃ ইরফান আজিজ এবং আইন ও বিচার বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোঃ আহসান কবির। এছাড়াও, বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা র‍্যালিতে অংশগ্রহণ করেন।

সহকারী অধ্যাপক মোঃ আহসান কবিরের সঞ্চালনায় আলোচনা সভা, চলচ্চিত্র প্রদর্শনী, প্রশ্নোত্তর পর্বের মাধ্যমে একাডেমিক আলোচনা পর্ব সম্পন্ন হয়।

জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশ বিষয়ক মানবাধিকার কর্মকর্তা জাহিদ হোসাইন তার বক্তৃতায় মানুষের সমানাধিকার, মানবাধিকার বিষয়ে কথা বলেন। তিনি বলেন রাষ্ট্রই পারে সকল জনগণকে সমান ভাবে দেখতে, সমাজের সকল বৈষম্যগুলোকে দূর করতে। রাষ্ট্র দুই কারণে জনগণের কাছে দায়বদ্ধ মানবাধিকার রক্ষা করতে বলে মনে করেন জাহিদ হোসাইন। নৈতিক এবং আইনগত কারণগুলোকে প্রধান দুটি কারন বলে তিনি অভিহিত করেন। আইনের চোখে যেহেতু সবাই সমান সেহেতু সবার মানবাধিকার রক্ষা করা জরুরি।

বিশিষ্ট মানবাধিকার কর্মী, কলাম লেখক এবং সংস্কৃতিকর্মী সঞ্জীব দ্রং তার বক্তব্যের শুরুতেই “মানবাধিকার সর্বজনীন ঘোষণাপত্রের” অনুচ্ছেদ-১ এর ব্যাখ্যা প্রদান করেন। বন্ধনহীন অবস্থায় এবং সমমর্যাদা ও অধিকারদি নিয়ে সব মানুষই জন্মগ্রহণ করে; অতএব ভ্রাতৃসুলভ মনোভাব নিয়ে তাদের একে অন্যের প্রতি আচরণ করা উচিত বলে তিনি উল্লেখ করেন।

বাউল লালনের গানের স্মৃতিচারণ করে তিনি বলেন মানুষের মধ্যে কোন জাত, বর্ণ, শ্রেণি, গোত্র, ভাষা, ধর্ম, নারী-পুরুষের পার্থক্যের কারনে যেন বৈষম্য সৃষ্টি না হয় এবং ইতোমধ্যে থাকা বৈষম্যগুলো যেন চরম আকার ধারণ না করে, সেজন্য আমাদের কাজ করতে হবে এবং সবাইকে একসাথে। কোন বৈষম্য থাকবে না এমন রাষ্ট্রের স্বপ্ন দেখেন বলে তিনি অভিহিত করেন এবং তিনি জোর দিয়ে বলেন রাষ্ট্র কারোর প্রতি বৈষম্য করতে পারে না যদি করে থাকে সেটাই মানবাধিকার লঙ্ঘন। তিনি আরো বলেন একটি দেশের পিছিয়ে পড়া মানুষদের অবস্থা দেখেই বোঝা যায় সে দেশের গনতন্ত্র এবং উন্নয়ন কতটা পরিপক্ক।

আইন ও বিচার বিভাগের সভাপতি মোঃ ইরফান আজিজ তার বক্তব্যে মানবাধিকার এবং মৌলিক অধিকারের ইতিহাস তুলে ধরেন। রোমান ফিলোসোফি থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত অধিকাংশ স্বাধীন দেশের সংবিধানে মৌলিক অধিকারের সংযুক্তির কথা উল্লেখ করেন।

মানবাধিকার দিবস, ২০১৯ এর থিমের ব্যাখ্যা প্রদান করে তিনি তরুনদের মানবাধিকার নিয়ে কাজ করার আহবান জানান। আইনের অবস্থা, অনুশীলন এবং সবার দায়িত্ত্ববোধের কথা স্মরণ করে তিনি মানবাধিকার রক্ষা এবং মানবাধিকার রক্ষার কাজে সবাইকে সহযোগিতা করার অনুরোধ করেন।

নাজমুল প্রামানিক, জাককানইবি প্রতিনিধি

মন্তব্য লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here